১লা অগ্রহায়ণ, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ | ১৫ই নভেম্বর, ২০১৮ ইং | ৭ই রবিউল-আউয়াল, ১৪৪০ হিজরী | বৃহস্পতিবার | সকাল ৯:৫৪ | হেমন্তকাল
সর্বশেষ সংবাদ
Bangla Font Problem?

চাঁপাইনবাবগঞ্জে দেবী বিসর্জনের মধ্য দিয়ে শেষ হলো শারদীয় দুর্গাপূজা

শুক্রবার :: ১৯.১০.১৮
সনাতন হিন্দু সম্প্রদায়ের সবচেয়ে বড় ধর্মীয় উৎসব শারদীয় দুর্গাপূজা প্রতিমা বিসর্জনের মধ্য দিয়ে শুক্রবার শেষ হয়েছে। পূজা উপলক্ষে চাঁপাইনবাবগঞ্জের প্রতিটি মন্ডপে মন্ডপে দৃশ্যমান ছিল আইনশৃঙ্খলা বাহিনী। ট্রাফিক পুলিশ প্রতিটি মন্ডপে নিরাপত্তা ও জানযট নিরসনে নিরলস কাজ করতে দেখা গেছে।
জেলায় ১৩২ টি মন্ডপে শারদীয় দুর্গোৎসব অনুষ্ঠিত হয় এবার। সদরে ছিল ৫৭
টি মন্ডপ। এ ছাড়াও শিবগঞ্জ ৩৫, গোমস্তাপুর ২৬, নাচোল ১২ ও ভোলাহাট উপজেলায় ২টি পূজা মন্ডপে অনুষ্ঠিত হয় শারদীয় দুর্গোৎসসব। গতবার ছিল ১২৭টি পূজা মন্ডপ। শুক্রবার সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায় শহরের হুজরাপুর, কালিতলা, ওয়ালটন মোড়, বড় ইন্দারা মোড়, হাসপাতাল মোড়, উদয় সংঘ মোড়, শিবতলা, বারঘরিয়া ২২ পুতুলসহ বিভিন্নস্থানে শেষ দিনে বিপুল সংখ্যক হিন্দুধর্মালম্বী মানুষের ভিড় লক্ষ করা গেছে। সন্ধা নামার সাথে সাথে দেবি দুর্গাকে বিসর্জনের জন্য মন্ডপ থেকে বের করে ঢাক ও বাঁশির তালে তালে শহরের রাস্তার বিভিন্ন অংশে ঘুরে মহানন্দা নদীতে নিয়ে যায়। সেখানে হিন্দু নারীরা উলু-ধ্বনির মাধ্যমে দেবি দুর্গাকে বিদায় জানান।
শিবতলায় দায়িত্ব পালন করা ট্রাফিক ইন্সপেক্টর মো. জাহিদুল হক জানান, পুলিশ সুপার টি এম মোজাহিদুল ইসলাম এর কড়া নির্দেশনা আছে যে, কোন মন্ডপের আশপাশে যেন যানযটের সৃষ্টি না হয়। মানুষ যেন স্বাচ্ছন্দে মন্ডপে মন্ডপে যেতে পারে। জাহিদুল হক আরো জানান, সে লক্ষেই আমাদের ট্রাফিক সার্জেন্ট আনসারদের পাশাপাশি দায়িত্ব পালন করছে। বেশ শান্তিপূর্ণ ভাবেই তাই শেষ হলো এবারের শারদীয় দুর্গোৎসব।
ধর্ম যার যার উৎসব সবার। এ উৎসবকে কেন্দ্র করে হিন্দু ধর্মালম্বী মানুষের যেন আনন্দের কমতি ছিল না। যে যার মত পেরেছে পরিবার নিয়ে মন্ডপে মন্ডপে দেবি দুর্গাকে দর্শণ করেছেন। পূজার দশমীর দিন তাই একটু বেশি ভিড় ছিল আমের রাজধানী চাঁপাইনবাবগঞ্জে।
এদিকে চাঁপাইনবাবগঞ্জ সদর আসনের সংসদ সদস্য আব্দুল ওদুদ গতরাতে ও আজ সকালে সদর উপজেলা ও পৌরসভার বিভিন্ন পূর্জামন্ডপ পরিদর্শন করেছেন। পৌর সভার হুজরাপুর, শিবতলা, সদর উপজেলার বারঘরিয়া বাইস পুতুল, মহারাজপুর, রামচন্দ্রপুরহাট এলাকার বিভিন্ন পূর্জা মন্ডপ ঘুরে দেখেন এবং হিন্দু সমাজের বিভিন্ন লোকজনের সাথে মতবিনিময় করেন। এ সময় উপস্থিত ছিলেন, চাঁপাইনবাবগঞ্জ পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির সভাপতি মনিরুল ইসলাম, রানীহাটি ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মহসিন আলী, বারোঘরিয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আবুল খায়েরসহ অন্যান্যরা।

মন্তব্য দেয়া বন্ধ রয়েছে।

একদম উপরে যান